সালামের উত্পত্তি--হাসান এর ব্লগ--আপন ভূবন ব্লগ - আপন প্রতিভার সন্ধানে 



প্রথম পাতা » হাসান এর ব্লগ » সালামের উত্পত্তি

সালামের উত্পত্তি

লিখেছেন : হাসান       ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৪ রাত ১১:৩০


২টি মন্তব্য   ৩৬৫৯ বার পড়া হয়েছে


الـــــــــــــــــــــــــــــــــــلام عـلـيـكم ورحمة الله



সালাম আরবী শব্দ।
এর অর্থ শান্তি,প্রশান্তি কল্যাণ,দোআ,আরাম,আনন্দ,তৃপ্তি।
সালাম হচ্ছে দোয়া সম্বলিত একটি সম্মানজনক অভ্যর্থনামূলক শান্তিময় উচ্চমর্যাদা সম্পন্ন পরিপূর্ণ ইসলামী অভিবাদন।
আল্লাহ তাআলা সর্বপ্রথম আদম ( আ: ) কে সালামের শিক্ষা দেন।
আবু হুরায়রা ( রা: ) হতে বর্ণিত রাসুলুল্লাহ (সাবলেছেন, আল্লাহ তাআলা আদম ( আ: ) কে সৃষ্টি করে বললেন, যাও ফেরেশতাদের দলকে সালাম দাও এবং মন দিয়ে শুন তার তোমার সালোমের কি জবাব দেয়।এটাই হবে তোমার ও তোমার সন্তানদের সালাম।তাই আদম ( আ: ) গিয়ে বললেন,
আস্‌সালামু আলাইকুম।
ফেরেশতাগণ জবাব দিলেন,
আস্‌সালামু আলাইকা ওয়া রাহমাতুল্লাহ।
ফেরেশতাগণ রাহমাতুল্লাহ বৃদ্ধি করলেন।(মিশকাত হা/৪৬২৮,শিষ্টাচার অধ্যায়,সালাম অনুচ্ছেদ)।


অন্যের গৃহে প্রবেশের ক্ষেত্রে কুরআনের নির্দেশ হচ্ছে
............. আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ করেছেন,
হে মুমিনগণ তোমরা নিজেদের গৃহ ব্যতিত অন্যের গৃহে প্রবেশ করো না, যে পর্যন্ত আলাপ পরিচয় না কর এবং গৃহবাসীদেরকে সালাম না দাও ।এটাই তোমাদের জন্য উত্তম।যাতে তোমরা স্মরণ রাখ। (সুরা নূর ২৭)


সুতরাং আমরা বেশি বেশি সালামের প্রচলন করি। পরিচিত-অপরিচিত ছোট -বড়, বড়-ছোট সবাই সবাইকে সালাম দেই।




সালাম সম্পর্কে কয়েকটি হাদিস শরীফ :
১। হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর ( রা: ) হতে বর্ণিত,তিনি বলেন।
জনৈক ব্যাক্তি রাসুলুল্লাহ ( সা: ) কে জিজ্ঞেস করলেন, "হে আল্লাহর রাসুল ! ইসলামের মধ্যে কোন কাজটি সর্বোত্তম ?" তিনি বললেন,"তুমি অপরকে খাদ্য দেবে এবং তোমার পরিচিত অপরিচিত সবাইকে সালাম দেবে।


২। উক্ববা ইবনু মুকরাম ও মুহাম্মাদ ইবনু মারযূক ( রহঃ ) আবূ ইসায়রা ( রাঃ ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ আরোহী ব্যক্তি পথচারীকে, পথচারী ব্যক্তি বসে থাকা ব্যক্তিকে এবং অল্প সংখ্যক লোক অধিক সংখ্যককে সালাম করবে। (মুসলীম)

৩। ইয়াহইয়া ইবনু ইয়াহইয়া ও ইসমাঈল ইবনু সালিম ( রহঃ ) আনাস ইবনু মালিক ( রাঃ ) থেকে বর্ণিত যে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ আহলে কিতাবের কেউ তোমাদের সালাম করলে তোমরা (শুধু এতটুকু) বলবে, ‘ওয়া আলাইকুম” (তোমাদের প্রতিও)। (মুসলীম)


৪। উবায়দুল্লাহ ইবনু মু’আয, ইয়াহইয়া ইবনু হাযীব, মুহাম্মাদ ইবনু মূসান্না ও ইবনু বাসশার ( রহঃ ) আনাস ( রাঃ ) থেকে বর্ণিত যে, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -এর সাহাবীগন নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -কে জিজ্ঞাসা করলেন, আহলে কিতাবরা আমাদের সালাম করে থাকে, আমরা কিভাবে তাদের জবাব দিব? তিনি বললেন, তোমরা বলবেঃ “ওয়া আলাইকুম।

=============================================
বেশি বেশি সালাম বিনিময় করি - অহংকার মুক্ত জীবন গড়ি।
=============================================




ব্লগ লিখছেন ৪ বছর ১০ মাস ২৫ দিন, মোট পোষ্ট ১টি, মন্তব্য করেছেন ১টি,          



এই ধরনের আরো কিছু পোস্ট.


বোধ করি আত্ম সমালোচনার প্রয়োজন আছে

আসুন ফিরে যাই শেকড়ে

বোধ বুদ্ধিতে বড় হোক মননে শিশুটি

ফিরতে হয়, এক সময় ফিরে আসতেই হয়

অবশেষে তপ্ত প্রাণ যেন জুড়ালো
 

মন্তব্য সমূহঃ

১. ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সকাল ০৬:০৭
নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:

চমৎকার উপদেশমূলক পোস্ট
আসুন আমরা অহংকার ত্যাগ করে
আগে আগে সালাম দেবার অভ্যাস
গড়ে তুলি


২. ১৩ জানুয়ারী ২০১৬ সন্ধ্যা ৭:০০
মজিবুর রহমান বলেছেন: আস্‌সালামু আলাইকুম
আমার অজ্ঞতাকে ক্ষমা করবেন জনাব -
"আহলে কিতাবের কেউ" বলতে কি অপরাপর আসমানি কিতাবে বিশ্বাসীদের বোঝানো হয়েছে?




মন্তব্য করতে লগিন করুন।

ইমেইল: পাসওয়ার্ড: রেজিস্ট্রেশন করুন